ইঞ্জিনিয়ার ও ডাক্তারের পরিচয় দিয়ে ১৫ জন মহিলাকে বিয়ে! গ্রেফতার বেঙ্গালুরুর এক ব্যক্তি।

Photo of author

By S.G

কখনও নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দেন, কখনও বা নিজেকে ইঞ্জিনিয়ার বলে পরিচয় দেন। এভাবেই ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার পরিচয় দিয়ে ১৫ জন মহিলাকে বিয়ে করলেন বেঙ্গালুরুর এক বাসিন্দা। অবশেষে প্রায় এক যুগ পর পুলিশের হাতে ধরা পড়েন তিনি।

মাইসোর পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত বিভিন্ন ম্যাট্রিমোনিয়াল সাইটে গিয়ে মহিলাদের সঙ্গে আলাপ জমাতেন। তারপর সে কখনো ইঞ্জিনিয়ার পরিচয় দিয়ে করে আবার কখনো ডাক্তার পরিচয় দিয়ে তাদের বিয়ে করেন। এভাবে ২০১৪ সাল থেকে অভিযুক্ত প্রায় ১৫ মহিলাকে বিয়ে করেছেন। এমনকি তার ৪টি সন্তানও রয়েছে।

অভিযুক্তের নাম মহেশ কে বি নায়ক। বয়স 35 বছর। বেঙ্গালুরুর বনশঙ্কারির বাসিন্দা। মাইসোরের একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার, যাকে তিনি এই বছরের শুরুতে বিয়ে করেছিলেন, অভিযুক্ত মহেশ কে বি নায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। এরপর পুলিশ তাকে খুঁজতে একটি দল গঠন করে। অবশেষে তাকে তুমাকুরু থেকে গ্রেফতার করা হয়।

যদিও তিনি শুধুমাত্র পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন, অভিযুক্ত প্রায়ই নিজেকে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা সিভিল কন্ট্রাক্টর দাবি করে মহিলাদের ফাঁদে ফেলেছিলেন। পুলিশ আরো জানায়, নায়ক তুমাকুরুতে একটি ভুয়া ক্লিনিক স্থাপন করেছিলেন। এমনকি সেখানে একজন নার্স নিয়োগ করা হয়েছিল। যাতে সবাই তাকে ডাক্তার বলে বিশ্বাস করে।

কিন্তু অভিযুক্তের ইংরেজিতে কথা বলার দক্ষতার অভাব অবশ্য অনেকের মনে সন্দেহের জন্ম দিয়েছিল। ফলে তারা তার বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। প্রসঙ্গত, অভিযোগকারিণীর অভিযোগ, ক্লিনিক স্থাপনের জন্য নায়ক তাকে হয়রানি করেন। সে রাজি না হলে সে তার গয়না ও নগদ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। অন্য একজন মহিলাও পুলিশের কাছে গিয়ে অভিযোগ করেছিলেন যে তিনি প্রতারিত হয়েছেন।

মজার ব্যাপার হলো, পুলিশ জানিয়েছে, নায়কের বেশিরভাগ স্ত্রীই আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী। পেশাদার এবং সে কারণেই সামাজিক কলঙ্কের ভয়ে মানুষ অভিযোগ দায়ের করা থেকে বিরত থাকে। পুলিশ এমনকি বলেছে যে তদন্তে জানা গেছে যে অভিযুক্ত মহেশ কে বি নায়কের বাবাও তার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন। তাঁকে খুনের চেষ্টার অভিযোগে নিজের ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করেছিলেন তিনি।

Leave a Comment